মঙ্গলবার (৩০ জুন) রাতে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, এ সময়ে দোকান ও শপিংমল সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

মার্চ মাসের শুরুতে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী প্রথম ধরা পড়ে। পরিস্থিতি ক্রম অবনতির দিকে যেতে থাকলে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এরপর দফায় দফায় ছুটি বাড়তে থাকে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, গত ৩০ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ছিল। পরে ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে অফিস খুলে দেয়া হয়, চালু করা হয় গণপরিবহন। পরে এ ব্যবস্থা ৩০ জুন পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়। সেই মেয়াদ আজ শেষ হচ্ছে।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এ সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান ও শপিং মল সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। যেটা আগে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ছিল।’

সরকারি অফিস এখন যেভাবে চলছে সেভাবই চলবে জানিয়ে ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘এখন সীমিত পরিসরে যেভাবে গণপরিবহন চলছে, সেভাবেই ৩ আগস্ট পর্যন্ত চলাচল করবে। এ সময়ের মধ্যে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ ও তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে সংক্রমণ যাতে কমানো যায় সেজন্য মানুষকে সচেতন করতে প্রচার-প্রচারণা চলাবে।’

তিনি বলেন, ‘কোরবানির পশুর হাটের বিষয়ে ইতোমধ্যে সিদ্ধান্ত স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশুর হাট বসবে।’

অন্যান্য ক্ষেত্রে বিধি-নিষেধগুলো আগের মতোই থাকবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here