মতলব প্রতিনিধি: মতলব পৌরসভার ঢাকিরগাঁও এলাকাতে আদালতে বাটোয়ারা মামলা থাকা অবস্থায় জমিতে দেয়াল নির্মাণ করে এখন বালু ভরাটের পাঁয়তারা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দু’পক্ষের বিবাদমান জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মামলা চলাবস্থায়, করোনা পরিস্থিতিতে আদালত বন্ধের সুযোগে এমনটি করা হচ্ছে বলে জানান মজিবুর রহমানসহ একাধিক অভিযোগকারীরা।

জানা যায়, ঢাকিরগাঁও এলাকার ওসমান গণি সরকার জীবিত থাকাবস্থায় ১৯৮২ সালে চাঁদপুর আদালতে বন্টন মামলা করেন। মামলা চলাকালীন সময়ে আদালতের অনুমতি নিয়ে তিনি বিবাদমান জমি ১৯৯৪ সালে একাধিক দলিলে মোট ১শত ২৮ শতাংশ জমি বিক্রয় করেন। এদিকে ওসমান গণির মৃত্যুর পর তাঁর পাঁচ ছেলের কাছ থেকে ওই বন্টন মামলার জমির মধ্য থেকে এলাকার রুহুল আমিন বেশ কয়েকটি দলিলে পুকুরের জমি ক্রয় করেন। পুকুরের জমি ক্রয়ের পর রুহুল আমিন বিভিন্ন প্রভাবশালী মহলকে ম্যানেজ করে আদালত বন্ধের সুযোগে চারপাশে দেয়াল নির্মাণ করে বর্তমানে বালু ভরাটের জন্য পাঁয়তারা করছেন।

বন্টন মামলার বিবাদি মুজিবুর রহমান বলেন, ওসমান গণি সরদার জীবিত থাকাবস্থায় তাঁর প্রাপ্ত অংশের চেয়ে বেশি জমি বিক্রি করার পরও তার ছেলেরা আবারো জমি বিক্রি করে। এদিকে ওই পুকুর ও ভরাট অংশে আমার প্রাপ্ত অংশের হিস্য দাবী করে আদালতে সাম দিয়েছি। করোনার কারণে আদালত বন্ধ হওয়ায় রুহুল আমিন লোকজন নিয়ে পুকুরের চারপাশে দেয়াল করে এখন বালু ভরাট করতে চাইছে। এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here