করোনা উপসর্গ নিয়ে
কচুয়ায় ছেলে ও স্বামীর পর মারা গেলেন মা
………………..
বিশেষ প্রতিনিধি ॥
চাঁদপুরের কচুয়ার পালগিরি গ্রামে করোনার উপসর্গ নিয়ে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহাদাত হোসেন মানিক (৫৩) মারা যাওয়ার ৯দিনের মাথায় বাবা ইঞ্জি. মুজিবুর রহমান বাচ্চু (৮৫) মারা যান এবং স্বামী মৃত্যুর ২দিনের মাথায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ফজিলাতুন্নেসা (৭৫) ও গতকাল শনিবার সকালে মারা গেছেন।
জানা গেছে, ঢাকা থেকে আসার পর করোনা উপসর্গ নিয়ে কচুয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহাদাত হোসেন মানিক গত ১৯ মে মারা যান। পরে তার করোনা নমুনা পরীক্ষার জন্য নেয়া হলে পরীক্ষায় তার করোনা পজেটিভ আসে। এরপর ২৮ মে শাহাদাত হোসেন মানিকের বাবা ইঞ্জি. মুজিবুর রহমান বাচ্চু করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন এবং সর্বশেষ গতকাল শনিবার শাহাদাত হোসেন মানিকের বাবা বাচ্চুর পর তার মা ফজিলাতুন্নেসা করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন। এ ঘটনায় এলাকায় সাধারন মানুষের মাঝে চরম আতংক বিরাজ করছে।
স্থানীয় বাসিন্দা মো: কবির হোসেন জানান, পরপর একই পরিবারের ৩জনের মৃত্যু অত্যান্ত দূ:খজনক। আমার গ্রামবাসী প্রশাসনের সহযোগিতায় উভয়ের মৃত্যুর পর পালগিরি গ্রামে তাদের দাফনের বিষয়ে সার্বিক সহযোগিতা করেছি। স্থানীয় লোকজন ওই গ্রামকে স্থায়ী ভাবে লকডাউন ঘোষনার দাবি জানিয়েছেন।
এ বিষয়ে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: সালাউদ্দিন মাহমুদ জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে প্রথমে নিহত বৃদ্ধার ছেলে শাহাদাত হোসেন মানিক মৃত্যুবরণ করেন। মানিক ঢাকা থেকে জ¦র-সর্দি-কাশি নিয়ে এলাকায় আসলেও আমাদের জানানো হয়নি। ৩দিন পর আমাদেরকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। শনিবার এ্যাম্বুলেন্সে যোগে ফজিলেতুন্নেছাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হলে দাউদকান্দি এলাকায় তিনি মারা যান। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, নিহত মানিক সরকারের অন্য সদস্যরাও ঝুকিঁতে রয়েছেন।
এদিকে কচুয়ার পালগিরি গ্রামে করোনা উপসর্গ নিয়ে ছেলে,বাবা ও মাসহ তিনজনের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। এলাকাবাসী চরম আংতকের মধ্যে ওই গ্রামকে স্থায়ী ভাবে লকডাউন ঘোষনার দাবি জানান.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here