..
করোনা সংক্রমণ রোধে চাঁদপুরে নতুন পদ্ধতিতে লকডাউন কার্যক্রম শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এর আগে পুরো জেলা লকডাউন করা হলেও পরবর্তী সময় তা শিথিল করা হয়।

তবে এখন থেকে জেলা-উপজেলা লকডাউন করার পরিবর্তে আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়ি ও তার আশপাশের কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী জেলাপর্যায়ে কার্যক্রম বাস্তবায়নে ভার্চুয়াল সভা করেছেন জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান।

জেলা করোনাবিষয়ক প্রতিরোধ কমিটির সদস্যরা যার যার জায়গায় অবস্থান করে এ সভায় অবস্থান নেন। সভায় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও সিনিয়র সচিব শাহ কামালসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন অন্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনাক্রমে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এখন থেকে আর পুরো জেলা বা উপজেলা #লকডাউন করা হবে না। যেসব বাসায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীরা অবস্থান করবেন, সেসব বাসা ও আশপাশের কয়েকটি বাসা লকডাউন করা হবে।

এ ক্ষেত্রে #চাঁদপুর শহরে শুধু আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়ি আর গ্রামপর্যায়ে আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়িসহ এর আশপাশের কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এটি বাস্তবায়নে থাকবে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এ সভায় অংশগ্রহণ করেন পুলিশ সুপার মো. মাহবুবুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, এনএসআইয়ের যুগ্ম পরিচালক আজিজুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদবিষয়ক সম্পাদক জিল্লুর রহমান জুয়েল, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ প্রমুখ।

জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান জানান, সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে- যেসব বাড়িতে #করোনা রোগী আছে, সেসব বাড়ি এবং আশপাশের কয়েকটি বাড়ি কঠোরভাবে লকডাউন করা হবে। এ ছাড়া সরকারি অন্য কোনো নির্দেশনা থাকলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here