মতলব দক্ষিণ উপজেলার উত্তর বাইশপুর ফকির বাড়িতে গলা কেটে ফুফু শামছুর নাহারকে হত্যা করেছে ভাইয়ের ছেলে পারভেজ। ঘটনাটি ঘটেছে ২৮ অক্টোবর বুধবার। জানা যায়, শামছুর নাহার পিতার বাড়ি বাইশপুরে থেকে মাকে দেখাশোনা করতো। শামছুর নাহারের পিতার নাম রহিম মুন্সী। উপাদী উত্তর ইউনিয়নে বহরী গ্রামের আ: রাজ্জাক এর সাথে শামছুর নাহার এর বিবাহ হয়। তার ৩টি কন্যা সন্তান রয়েছে। ঘটনার দিন স্বামী আ: রাজ্জাক ঢাকায় চিকিৎসাধীন ছিল। খবর পেয়ে মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার আইচ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান এবং লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মতলব সার্কেল) মো: আহসান হাবীব, জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী আ: রহিম। এদিকে মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার আইচ এর অনুরোধে টিবিআই ইন্সপেক্টর মো: বাচ্চুর নেতৃত্বে চৌকস দল ঘটনাস্থলে এসে বিভিন্ন আলামত জব্দ করেন। পরে ঘটনার সাথে সম্পৃক্ততার পারভেজকে আটক করা হয়েছে। গৃহবধূ পারভেজের ফুফু হয়। তার বাড়িও বাইশপুরে। মতলব দক্ষিণ থানার স্বপন কুমার আইচ জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে মোবাইল ট্রাকিং করে ঘটনার সাথে জড়িত পারভেজকে মতলব বাজারের চেয়ারম্যান ঘাট থেকে আটক করা হয়। আটক পারভেজ শামছুন নাহারের ভাইয়ের ছেলে। আটক পারভেজ জানায় সে নিজেই তার ফুফুকে গলা কেটে হত্যা করেছে। জায়গা সম্পত্তি ভাগ করে না দেয়ায় সে তার ফুফুকে হত্যা করেছে বলে মায়ের কাছে বলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here