চাঁদপুর মতলব উত্তর উপজেলার সুলতানাবাদ ইউনিয়নে ইন্দুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে চারতলা ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর হইতে মেসার্স জব্বর এন্টারপ্রাইজ নামে একটি প্রতিষ্ঠান চার-তলা একাডেমিক ভবনের নির্মাণ কাজ প্রাপ্ত হয়ে নি¤œমানের কাজ শুরু করে। সরজমিন গিয়ে দেখা যায় নি¤œমানের ইট, রড, সিমেন্ট, বালি দ্বারা নির্মাণ কাজ চলছে। এতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও অভিভাবকরা বাধা দিলে তিনি নিজের ইচ্ছামত কাজ করতে থাকেন। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সিডিউল অনুযায়ী তিনি অত্র বিদ্যালয়ের ভবনের নির্মাণ কাজ করছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ক্রাউন সিমেন্ট দ্বারা কাজ করার জন্য ঠিকাদারকে অনুরোধ করলেও তিনি কোন কর্ণপাত করছে না। কাজের মান নি¤œমানের এবং যাহা সাইটের সাদা বালি তদন্ত করিলে ভিটি বালি হিসেবে প্রমানিত হবে। গত ২০ অক্টোাবর স্থানীয় ইউপি নির্বাচনে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন গন্যমান্য ব্যক্তি এবং এলাকার ইঞ্জিনিয়ারগণ দো-তলা ছাদ ঢালাইয়ের কাজ নি¤œমানের দেখে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষক ও ভোকেশনাল শাখার শিক্ষক মনির হোসেনকে অবহিত করে। ভবনের ছাদের থিকনেস ৫ ইঞ্চির স্থলে ৪ ইঞ্চি/৪ ইঞ্চি এ রকম পাওয়া যায়। এই অবস্থায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রকৌশল বিভাগকে অবহিত করে এবং কাজ বন্ধ রাখার জন্য ঠিকাদারকে অনুরোধ করেন। গত ২৯ অক্টোবর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রকৌশলীকে ত্রুটি পূর্ণ কাজের বিষয়ে অবহিত করলে ঠিকাদার বহিরাগত মাস্তান তাফাজ্জল ওরফে মোস্তফা ঘটনাস্থলে এসে প্রধান শিক্ষককে হুমকি ধমকি প্রদান করে এবং অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেন বলেও উপস্থিত গণ্যমান্য ব্যক্তিরা জানায়। এছাড়া বিদ্যালয়ের অভিভাবকরা এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। মোস্তফা প্রায় সময় বিদ্যালয়ের শিক্ষকদেরকে হুমকি ধমকি প্রদান করে থাকে। ফলে শিক্ষকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ সরজমিনে তদন্তপূর্বক বিদ্যালয়ের চার তলা ভবনের নির্মাণ কাজের স্টিমেট অনুযায়ী পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে কাজের গুনগত মান বজায় রাখতে এলাকাবাসী অনুরোধ জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here