মহামারী করানো ভাইরাসের কারণে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা মোতাবেক প্রত্যেকেই চেষ্টা করছেন বাহিরে কোন ঘুরাঘুরি করার জন্য। যার যার বাড়িতে থাকার জন্য এবং অনেকে থাকছেন। বাধ্য হয়ে থাকতে হচ্ছে কারণ স্কুল কলেজ বন্ধ। তার পাশাপাশি বাহিরের ঘোরাঘুরি করলে করানো ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে সেজন্য ইচ্ছে না থাকলেও সবাই যার বাড়িতে অবস্থান করছেন। কিন্তু গত বেশ কিছুদিন যাবৎ মতলব উত্তরের বিদ্যুৎ বিভাগের অযথা খামখেয়ালিপনা কারণে মতলব উত্তরের জনসাধারণের জীবন চলাচল নাভিশ্বাস হয়ে উঠেছে। সকলেরই একটা প্রশ্ন করোনা ভাইরাসের মত অদৃশ্য মহামারীর সাথে মোকাবেলা করতে করতেই আমরা না বিশ্বাস তার ওপর দৃশ্যত মতলব উত্তর বিদ্যুৎ বিভাগের হঠকারিতা এবং খামখেয়ালিপনায় আমাদের জীবন যাপন আরো নাভিশ্বাস হয়ে উঠছে। এর কি কোন প্রতিকার নেই ? এখনতো বাংলাদেশে বিদ্যুতের কোন ঘাটতি নেই বা আমাদের পাশের থানা মতলবের দিকে তাকালে দেখি বিদ্যুতের এত লোডশেডিং হচ্ছে না কিন্তু মতলব উত্তরে কি অপরাধ করলাম আমরা ? মতলব উত্তরে বিদ্যুৎ বিভাগে যারা দায়িত্বে আছেন তাদের কী ক্ষতি করলাম আমরা ? তারা কেন আমাদের সাথে এমন নির্দয় ব্যবহার করছেন? ছোট ছোট বাচ্চা বয়স্ক মুরুব্বীদের নিয়ে খুবই কষ্টের দিনযাপন করতে হচ্ছে মতলব উত্তর এলাকাবাসীর। কিন্তু কেন? কেন আমাদের উপর এই অবিচার করা হচ্ছে? এর জবাব দেবে কে? আমরা বিদ্যুৎ বিভাগের যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে আরও দায়িত্বশীল আচরণ আশা করছি । প্লিজ প্লিজ প্লিজ আপনারা মতলব উত্তর বাসির দিকে একটু তাকান। দয়া করে একটু বিদ্যুৎ দেন। বর্তমান প্রেক্ষাপটে বিদ্যুৎ একটি অপরিহার্য প্রয়োজনীয়। বিদ্যুৎ ছাড়া জীবনমান চলা খুবই কষ্টকর। মতলব উত্তর বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তাদের যথাযথ সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করছি বিষয়টি একটু মানবিক দিক বিবেচনা করে দেখার জন্য। কেন একবার বিদ্যুৎ চলে গেলে ৫ ঘন্টা ৬ঘন্টায় বিদ্যুৎ আসে না? কেন সামান্য দুই এক ফোঁটা বৃষ্টি হলেই বিদ্যুৎ চলে যায় মতলব উত্তরে? এর জবাব চাই জবাব দিতে হবে। বিদ্যুৎ আমরা কোন অনুদান হিসেবে না আমাদের টাকায় ব্যবহার করি তাই বিদ্যুৎ এর সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে । শুধু খুঁটি তার আর বাসা বাড়িতে বিদ্যুতের লাইন থাকলেই হবে না বিদ্যুতের সেই লাইনে পর্যাপ্ত সময় কারেন্ট থাকতে হবে।

পরিশেষে আমাদের চাঁদপুর ২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয় ,মতলব উত্তর উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয়, এবং মতলব উত্তরের সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহোদয় ছেংগারচর পৌরসভার মেয়র মহোদয় সহ যথাযথ সকল কর্তৃপক্ষের সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করছি বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে এবং মানবিক দৃষ্টিকোণ বিবেচনা করার জন্য ধন্যবাদ।

সৌজন্যে-মতলব উত্তর উপজেলা সর্বস্তরের জনগণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here