মহামারী কালিন সময় (COVID-19) বাংলাদেশের অনেক জনপ্রতিনিধিই নিজের জিবন নিয়ে হোম কোয়ারন্টাইনে ছিলেন। আবার কেউ জনগনের দরজা পর্যন্ত গিয়েছেন। তেমনি একজন জনপ্রতিনিধি ছিলেন চাঁদপুরের মতলব দক্ষিন উপজেলার ১নং নায়েরগাঁও উঃ ইউনিয়নর দুই বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোঃ মিজানুর রহমান সেলিম মিয়াজী।মহামারীর সময়ে নিজ নির্বাচিত এলাকায় ঘুরে ঘুরে মানুষের সমস্যার কথা জানতেন। যদি কোনো ব্যস্ততার কারনে যেখানে না যেতে পারতেন ওয়ার্ড প্রতিনিধি অথবা নিজস্ব লোক পাঠাতেন।
হোম কোয়ারন্টাইন তো দুরের কথা জনগনের পাশে থাকা ছিল ওনার কাছে ফরজ।আমাকে আপনারা ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। আমি আপনাদের পরিবারের মানুষ। যে সময় যা প্রয়োজন আমাকে বলবেন কোন লজ্জা না রেখে। সত্যিই আমরা ভাগ্যবান এমন চেয়ারম্যান পেয়ে।
তিনি সব সময় বলেন, আমি জনগনের কারণে চাঁদপুরে স্বর্ন পদক প্রাপ্ত শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান হয়ছি।
এই অর্জন আমার একা নয় ইউনিয়নের প্রতেক শ্রেণীপেশার মানুষের।আমি নির্বাচনের ইসতেহার দিয়েছিলাম জনগনের পাশে থাকবো তাদের সেবায় আমি নিয়োজিত।পরিষদের চেয়ারে যখন বসি ঐ সময় আমার পরিবারের সদস্যদের কথা মনে থাকে না। আমার দুইছেলে আমি যে তাদের বাবা আমি ভুলে যাই কারন আমি এই ইউনিয়নে ২০ হাজার মানুষের প্রতিনিধি। কখনো যদি পরিষদে থাকাকালিন আমার ছেলেরা ফোন দেয় স্পষ্ট বলি, বিকাল পাঁচটার পরে কথা হবে।
আমি যদি জনগনের দুঃখের সময় চলে যাই সুখের সময়ে আসি এটা তো হবে না।
আমি দুঃখে সুখে সব সময় আছি ছিলাম থাকবো। দোয়া করবেন আমার জন্য আমাকে আল্লাহ্ যেন সুস্হ রাখে আমার পরিবার এবং পরিষদের ওয়ার্ড প্রতিনিধি গ্রাম পুলিশ।
ভালো থাকবেন নামাজ পরবেন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকবেন পরিবেশ সুন্দর রাখবেন।
——মোঃ সাফায়েত আলম সানী৮
ছাত্রনেতা, ১নং নায়েরগাঁও উঃ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ
ব্যাক্তিগত সহকারী
১নং নায়েরগাঁও উঃ ইউপি চেয়ারম্যান মহোদয়ের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here