সোহেল সরকার-

শিকারীকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক রেহান উদ্দিন স্যার এর বাইক চুরি হয়েছে গতরাতে। চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক বাশার স্যার এর বাইক চুরি হয়েছে গত ৩রা নভেম্বর। বাশার স্যার এর সাথে দেখা জৈনিক এক ব্যাক্তির দু’দিন হলো চুরি হয়েছে বাইক। এরা সবাই অভিযোগ করতে গিয়েছিলেন থানায়। থানায় গিয়ে দেখেন মতলব উত্তর উপজেলার কালীপুর গ্রাম থেকে বাইক চুরি করার সময় হাতেনাতে দুইজন চোর ধরে থানায় যোগাযোগ করলে চোরদের গ্রেফতার করে নিয়ে আসেন পুলিশ। অর্থাৎ প্রতিদিনই মতলব উত্তর থেকে একটি সংঘবদ্ধ চক্র ২/৩টি মোটর সাইকেল চুরি করে। এছাড়াও সিধ কেটে চুরির ঘটনা, ইজিবাইক চুরির ঘটনা, অটোরিকশা সহ নানান ধরনের চুরির অভয়ারণ্যে তৈরি হয়েছে মতলব উত্তরে। ইজিবাইক চুরির ঘটনা নিত্যদিনই ঘটছে, কিন্তু কোন প্রতিকার নেই। স্পষ্ট যে, চোররা তান্ডব চালাচ্ছে মতলব উত্তরে। মজার ব্যাপার হচ্ছে দু’জন শিক্ষাগুরুসহ দিনে মোট ৪টি বাইক চুরির অভিযোগ থানায় করতে গিয়ে বিফলে ফেরত আসেন ভুক্তভোগীরা। অথচ জাতির চতুর্থ খুটি খ্যাত জৈনিক একজনের মোটরসাইকেল চুরি হওয়ার তিন দিনের মাথায় যে প্রশাসন চুরি হওয়া বাইকটি উদ্ধার করলো সে প্রশাসন শিক্ষাগুরু বা সাধারণ জনগণের জন্য সেবার গতিতে বিপরীত কেন? নিত্য দিনই ঘটে যাওয়া চুরির ঘটনায় নিশ্চয় এক বা দুই জনের কাজ নয়, এখানে সংঘবদ্ধ একটি চক্র চুরির অভয়ারণ্যে বানিয়েছে মতলব উত্তরকে। প্রশাসন কি চাইলে পারেনা এই চক্রের শিকড় উপরে ফেলতে মতলব উত্তর থেকে?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here