বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্যতম ভরসা যোগ্য ব্যাটসমান মুশফিকুর রহিম ১৯৮৭ সালে বগুড়া জেলায় জন্মগ্রহন করেন মুশি। ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক।

বাংলাদেশের হয়ে ৭০ টি টেষ্ট, ২১৮টি একদিনের ম্যাচ এবং ৮৬টি আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন। প্রায় ১৫ বছরের ক্রিকেটীয় জীবনে করেছেন ১১,৬৬৫ রান। যা তাকে করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের তৃতীয় সেরা রান সংগ্রাহক।

মুশির ক্রিকেটের অাগমন ঘটে মাত্র ১৬বছর বয়সে টেষ্ট ক্রিকেটে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে! এরপর পেরিয়ে গেলো একযুগেরও বেশি সময়। সময়ের পরিক্রমায় হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং মেরুদণ্ড! অর্জনের খাতায় অনেক কিছু আছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো তিনি বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন! এছাড়াও তিনি একমাত্র উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে শুধু বাংলাদেশ নয় পুরো ক্রিকেট ইতিহাস তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন। প্রায় ২০০বছরের ক্রিকেট ইতিহাসে এ অর্জন আর কারো নেই।

থাক না আজকে এসব পরিসংখ্যানের হিসেব নিকেশ। পরিসংখ্যান দিয়ে সাফল্য ব্যর্থতা ফুটিয়ে তোলা যায়। কিন্তু, সেই মানুষের অবদান সম্পূর্ণরুপে অনুভব করা যায় না।

তিনি যে শুধু একজন ভালো ক্রিকেটার তাই কিন্তু না! ক্রিকেটার পরিচয়ের বাইরেও তিনি অনেক ভালো একজন মানুষ। হয়তো কিছুটা আবেগী কিন্তু অসহায় মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়িয়েছেন যখনই প্রয়োজন পড়েছে। তবে সেগুলো নিয়ে খবর হয়না কারণ তিনি কাউকে জানিয়ে সেই ভালো কাজগুলো করেন নাহ। এইতো করোনার কারণে দরিদ্র মানুষের সহয়তা করার জন্য নিজের জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অর্জনের ব্যাট টা নিলাম করে দিচ্ছেন। এটা জানাজানির কারণ হলো নিলামে প্রচারণা না হলে ভালে দামে বিক্রি হবে না। আল্লাহ তায়ালা উনার ভালো কাজের জন্য উনার জীবনের সফলতা গুলো বৃদ্ধি করে দিন। আল্লাহ তায়ালা তাঁকে ও তাঁর পরিবারের সবাইকে সুস্থ রাখুন সেই দোয়া করি! আমিন!

অনেক অনেক শুভ কামনা রইল পকেট ডাইনামো মুশফিকুর রহিমের জন্য । নায়েরগাঁও দিগন্ত ও নায়েরগাঁও কন্ঠস্বর পরিবারের পক্ষ থেকে মুশফিকুর রহিমের ৩৩ তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা রইলো!!!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here