স্পোর্টস ডেক্সঃ

কিংস্লে কোমানের একমাত্র গোলে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে আসা পিএসজিকে হারিয়ে ৭ বছর পর ষষ্ঠবারের মতো শিরোপা জিতলো বায়ার্ন মিউনিখ। রোববার রাতে পর্তুগালের লিসবনে ১-০ গোলের ব্যবধানে এ  জয়ের ফলে ট্রেবল জিতে নেয় বাভারিয়ানরা। পুরো টুর্নামেন্টজুড়ে অপরাজিত থেকে চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা জিতেছে হ্যান্সি ফ্লিকের শিষ্যরা।
ক্লাবের পঞ্চাশ বছরে এসে প্রথমবারের মতো ফাইনালে আসা পিএসজি’র সামনে এই দিন ইতিহাস গড়ার সুযোগ ছিলো। কিন্তু ম্যাচের শুরু থেকেই ছন্দহীন ফুটবল খেলে যাচ্ছিলো নেইমার এমবাপ্পেরা। অন্যদিকে বল নিজেদের দখলে নিয়ে খেলতে থাকে জার্মান জায়ান্টরা। আলো ছড়িয়েছেন বায়ার্ন গোলকিপার ম্যানুয়েল নয়্যার। তবে ম্যাচজুড়ে ছন্দহীন নেইমার, এমবাপ্পে, ডি মারিয়া কয়েকবার গোলের সুযোগ পেয়েও দুর্বল শর্ট নেওয়ায় গোল বঞ্চিত থাকতে হয় টমাস টুখেলের শিষ্যদের।
ম্যাচের ১৬তম মিনিটে গোল করার সুযোগ পেয়েছিলেন নেইমার। কিন্তু তার নেওয়া শট দুইবার ফেরে বায়ার্নের গোলরক্ষক ম্যানুয়েল নয়্যারের পায়ে লেগে। ২২তম মিনিটে বায়ার্নের রবার্ত লেভানডোফস্কির নেওয়া শট পিএসজির কেইলর নাভাস ধরতে পারেননি। নিশ্চিত গোল হতে পারতো। কিন্তু শটটি পোস্টে লেগে ফিরে আসে।
২৪তম মিনিটে নিশ্চিত গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। কিন্তু মিস করেন এই আর্জেন্টাইন। তার নেওয়া শট বারের উপর দিয়ে চলে যায়। প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে ডি বক্সের মধ্যে গোলরক্ষকে একা পেয়েছিলেন কালিয়ান এমবাপে। কিন্তু তিনি সরাসরি মেরে দেন নয়্যারের পায়ে! তাতে গোলশূন্যভাবেই শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা।
বিরতির পর ৫৯তম মিনিটে কাঙ্খিত গোলের দেখা পায় বায়ার্ন। এ সময় বাম দিক থেকে  জশুয়া খিমিচের ক্রসে বক্সের মধ্যে লাফিয়ে উঠে হেড নেন কিংসলে কোমান। বল নিরাপদে জালে আশ্রয় নেয়। এরপর গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকা পিএসজি শেষের দিকে সুযোগ তৈরি করলেও শেষ পর্যন্ত ১-০ ব্যবধানের পরাজয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ট্রফির খুব নিকটে গিয়েও খালি হাতে ফিরতে হলো টুখেলের শিষ্যদের

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here